Positive বার্তা (বাংলা)

A teamwork initiative of Enthusiastic people using Social Media Platforms

Homeস্বাস্থ্যHeart Attack : প্রিয়জনের হার্ট অ্যাটাক -কী করবেন ?

Heart Attack : প্রিয়জনের হার্ট অ্যাটাক -কী করবেন ?

Heart Attack : প্রিয়জনের হার্ট অ্যাটাক -কী করবেন ?

Heart Attack: হার্ট অ্যাটাক হল হৃৎপিণ্ডে রক্ত ​​​​প্রবাহ হঠাৎ ব্লক হয়ে যাওয়ার ফলে তৈরি একটি মেডিকেল জরুরী অবস্থা। এটি করোনারি ধমনীতে চর্বি জমা হওয়ার কারণে হতে পারে, যা হৃৎপিণ্ডে রক্ত ​​​​সরবরাহ করে।

চোখের সামনে প্রিয়জনের হার্ট অ্যাটাক দেখা যেকোনো মানুষের জন্যই ভয়ঙ্কর অভিজ্ঞতা। আতঙ্কিত হওয়া স্বাভাবিক, তবে মনে রাখবেন দ্রুত পদক্ষেপ নেওয়া প্রিয়জনের জীবন বাঁচাতে পারে।

হার্ট অ্যাটাকের লক্ষণগুলির মধ্যে রয়েছে (Heart Attack) :

  • বুকে ব্যথা, চাপ, চাপ বা ভারী ভাব
  • বুকের ব্যথা যা আপনার চোয়াল, কাঁধ, বাহু, পেট বা পিঠে ছড়িয়ে পড়তে পারে
  • শ্বাসকষ্ট
  • বমি বমি ভাব বা বমি
  • ঠান্ডা ঘাম
  • মাথা ঘোরা বা অজ্ঞান হয়ে যাওয়া

আপনি যদি হার্ট অ্যাটাকের কোনও লক্ষণ অনুভব করেন তবে তাড়াতাড়ি জরুরি চিকিৎসা সেবা নেওয়া গুরুত্বপূর্ণ। হার্ট অ্যাটাকের চিকিৎসার মধ্যে রয়েছে :

  • ঠান্ডা মাথায় থাকুন : আতঙ্কিত হওয়ার পরিবর্তে, ঠান্ডা মাথায় পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণের চেষ্টা করুন।
  • ৯৯৯ কল করুন : দ্রুততম সময়ের মধ্যে অ্যাম্বুলেন্স এবং চিকিৎসা সহায়তা পৌঁছানোর জন্য ৯৯৯-এ কল করুন।
  • রোগীকে নিরাপদে শুইয়ে দিন : রোগীকে সমতল জায়গায় শুইয়ে দিন এবং তাদের মাথা ও কাঁধ সামান্য উঁচু করে রাখুন।
  • আরাম দিন : রোগীকে আশ্বস্ত করুন এবং তাদের সাথে শান্তভাবে কথা বলুন।
  • প্রয়োজনে সিপিআর দিন : যদি রোগী শ্বাস-প্রশ্বাস বন্ধ করে দেয় বা অজ্ঞান হয়ে যায়, তাহলে সিপিআর শুরু করুন।

কিছু গুরুত্বপূর্ণ বিষয় :

  • রোগীর পোশাক আলগা করে দিন : এতে রোগীর শ্বাস-প্রশ্বাস নেওয়া সহজ হবে।
  • রোগীকে কোনও খাবার বা পানীয় দেবেন না : এতে তাদের বমি হতে পারে।
  • রোগীর সাথে থাকুন : অ্যাম্বুলেন্স আসার আগ পর্যন্ত রোগীর সাথে থাকুন এবং তাদের সাহায্য করুন।
হার্ট অ্যাটাকের লক্ষণ :
  • বুকে তীব্র ব্যথা
  • শ্বাসকষ্ট
  • ঘাম হওয়া
  • বমি বমি ভাব
  • মাথা ঘোরা
  • অজ্ঞান হয়ে যাওয়া
হার্ট অ্যাটাক প্রতিরোধে সাহায্য করার জন্য আপনি বেশ কয়েকটি জিনিস করতে পারেন, যার মধ্যে রয়েছে :
  • ধূমপান ত্যাগ করা
  • স্বাস্থ্যকর খাদ্য গ্রহণ করা
  • নিয়মিত ব্যায়াম করা
  • আপনার ওজন নিয়ন্ত্রণে রাখা
  • উচ্চ রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণে রাখা
  • উচ্চ কোলেস্টেরল নিয়ন্ত্রণে রাখা
  • ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণে রাখা
  • নিয়মিত চিকিৎসকের পরামর্শ নেওয়া
শেষ কথা :

হার্ট অ্যাটাক একটি জরুরি অবস্থা। দ্রুত পদক্ষেপ নেওয়া এবং প্রয়োজনে সিপিআর প্রদান করা রোগীর জীবন বাঁচাতে পারে।

মনে রাখবেন, ঠান্ডা মাথায় কাজ করা এবং দ্রুত সিদ্ধান্ত নেওয়া এই পরিস্থিতিতে জীবন বাঁচানোর চাবিকাঠি।

আরো পড়ুন: Immune System – বদলাচ্ছে আবহাওয়া, চাঙ্গা থাকতে যা কিছু খাবেন :

Join Our WhatsApp Group For New Update
RELATED ARTICLES

1 COMMENT

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

সবচেয়ে জনপ্রিয়